ছেলেদের চুল পড়ার কারন এবং চুল পড়া বন্ধ করার উপায়

ছেলেদের চুল পড়াঃ ছেলেদের চুল পড়ার কারন এবং চুল পড়া বন্ধ করার উপায় পোষ্টে আপনাদের স্বাগত্বম। বর্তমান যোগে অল্প বয়সে ছেলেদের চুল পড়া একটি জঠিল সমস্যা হয়ে দাড়িয়েছে। প্রতিদিন 50 থেকে 100 চুল পড়ে যাওয়া স্বাভাবিক, তবে এটির চেয়ে বেশি পড়ে যাওয়া ঠিক নয়। যে সব ছেলে মেয়েদের অল্প বয়সে চুল পড়া সমস্যায় ভোগছেন, তাদের জন্য আজকের এই লেখাটি। 

ছেলেদের চুল পড়ার কারন এবং চুল পড়া বন্ধ করার উপায়
চুল পড়া বন্ধ করার উপায়

আজকের পোষ্টে আপনাদের সাথে ছেলেদের চুল পড়ার কারনচুল পড়া বন্ধ করার উপায় এবং চুল পড়া রোধে করণীয় নিয়ে বিস্তারিত অলোচনা করব। 

চুল আমাদের সৌন্দর্য বাড়ানোর ক্ষেত্রে খুবই প্রয়োজন। ভাল এবং ঘন চুল একজন ব্যক্তিকে আকর্ষণীয় এবং খুব সুন্দর করে তোলে। একই সঙ্গে চুলের কোনও সমস্যা থাকলে আমরা খুব মন খারাপ করে থাকি। এই সমস্যাগুলিতে চুল পড়া আরও বেদনাদায়ক। এই ধরণের সমস্যায় কেবল মহিলারা নয় পুরুষরাও অত্যন্ত বিপর্যস্ত। পুরুষদের ক্ষেত্রে যখন চুল বাড়তে থাকে বা চুলের গতি কমতে শুরু করে তখন সমস্যাটি আরও বেড়ে যায়।

আরও পড়ুন -

চুল পড়ার কারণ

জেনে রাখা জরুরী যে, বয়সের সাথে সাথে মানুষের চুল পড়া শুরু হয় এবং তারা টাক পড়ে যায়। এই ক্রিয়াটি মহিলাদের মধ্যেও ঘটে। তবে তাদের লম্বা চুলের কারণে এটি তাদের মধ্যে জানা নেই। পুরুষদের চুল ছোট হয়, তাই তাদের মধ্যে টাক পড়ে দ্রুত ধরা পড়ে।

চুল পড়ার সমস্যা স্থায়ী এবং অস্থায়ী উভয়ই হতে পারে। চুল পড়ার সমস্যায় ভয় পাওয়ার আগে আপনার জানা উচিত যে, প্রতিদিন আমাদের মাথা থেকে কিছু চুল পড়ে এবং এই চুলের জায়গায় নতুন চুল গজায়। এটি প্রকৃতির নিয়ম। হ্যাঁ, যদি চুলগুলি প্রচুর পরিমাণে বা গুচ্ছগুলিতে পড়ে, তবে চিকিত্সার পরামর্শ নেওয়া গুরুত্বপূর্ণ। তো, আসুন পুরুষদের মধ্যে চুল পড়ার কারণ গুলিও জেনে নিই।

  • বেশি চাপ নেওয়া - স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন যে বেশি চাপের মধ্যে থাকেন তারা বিভিন্ন ধরণের অসুস্থতায় ভুগতে পারেন। অতিরিক্ত চাপের কারণে অনেক সময় চুল পড়াও সমস্যা হতে পারে।
  • চুলে বেশি পরিমানে তেল দেওয়া - চুলে অতিরিক্ত তেল দিলে চুলের গোড়া ভিজে থাকার কারনে চুল পড়তে পারে। 
  • চুলের গোড়া অপরিষ্কার থাকার কারনে - চুলের গোড়া অপরিষ্কার থাকার কারনে চুল পড়া শুরু হতে পারে।
  • হরমোনের পরিবর্তন- হরমোনের পরিবর্তন চুল পড়াও হতে পারে। সাধারণভাবে অতিরিক্ত বা ঘাটতিযুক্ত টেস্টোস্টেরনের কারণে চুল ক্ষতি হয়।
  • অতিরিক্ত ধূমপান বা মদ্যপান - এটি দেখা যায় যে চুল পড়া ক্ষতি হয় তাদের মধ্যে যারা বেশি ধূমপান বা অ্যালকোহল গ্রহণ করেন তাদের মধ্যে দেখা যায়।
  • জেনেটিক সমস্যা- বেশিরভাগ সময় লোকদের মধ্যে চুল পড়ার সমস্যা জেনেটিক হয়। আপরনার বাবা বা দাদার ঢাক পড়ে যায় তাহলে আপনারও একই অবস্থা হতে পারে। জেনেটিকের কারণে আপনি এই সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছেন।
  • গুরুতর অসুস্থ হওয়ার কারণে - আপনার চুলও গুরুতরভাবে পড়তে শুরু করে। তবে, এভাবে চালানো চুল পুনরায় গজানো সম্ভব।
  • বেশি ভিটামিন-এ থাকা - শরীরে বেশি ভিটামিন এ থাকাও চুল পড়ার সমস্যা শুরু হয়। এমন পরিস্থিতিতে আপনার ভিটামিন এ সমৃদ্ধ খাবার খাওয়া বন্ধ করা উচিত।

চুল পড়া বন্ধ করার উপায়

চুল পড়া বন্ধ করতে হলে প্রথমেই আপনাকে খারাপ লাইফস্টাইল বা জীবনযাত্রা পরিত্যাগ করতে হবে। কিছু চুল পড়া রোধে করনীয় নিচে দেওয়া হলো- 

চুলের গোড়া পরিষ্কার রাখুন: 

অনেক পুরুষ আছে যারা চুল পরিষ্কার রাখে না। যার কারনে চুলের গোড়ায় ময়লা জমে। চুলে গোড়ায় ময়লা জমার কারনেও অনেক ছেলেদের অল্প বয়সে চুল পড়ে যায়। চুলের গোড়া পরিষ্কার রাখতে আপনি সাবান বা স্যাম্পু ব্যাবহার করতে পারেন। তবে নিয়মিত চুলে স্যাম্পু ব্যবহারের কারনে চুল পড়া আরও বেশি বেড়ে যেতে পারে। 

চুলে অতিরিক্ত তেল দেওয়া:

আমাদের চুল কালো এবং লম্বা রাখতে চুলে তেল ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু আমরা জানি না চুলে বেশি পরিমানে তেল দেওয়া চুল পড়ার অন্যতম কারন। কারন, চুলের গোড়ায় বেশিক্ষন তেল লেগে থাকলে চুলের গোড়া নরম হয়ে যায়। যার ফলে অল্প টানেই চুল উঠে যায়। চুল পড়া বন্ধ করার জন্য চুলে বেশি তেল প্রয়োগ থেকে বিরত থাকুন। 

বেশিক্ষন চুল ভিজিয়ে রাখবেন না:

আমরা অনেকেই আছি যারা গুসল করার সময় অনেক্ষন চুল ভিজিয়ে রাখি। বেশিক্ষন চুল ভিজিয়ে রাখলে চুলের গুড়া নরম হয়। ফলে চুল পড়ে। চুল পড়া বন্ধ করার উপায় হলো বেশিক্ষন চুল ভিজিয়ে রাখবেন না। 

নিয়মিত স্যাম্পু করা পরিহার করুন: 

নিয়মিত স্যাম্পু ব্যবহার করলে চুল পড়ে যেতে পারে। স্যাম্পুতে আছে রাসায়নিক কেমিক্যাল। যা নিয়মিত ব্যবহার করার ফলে চুলের ত্বক নষ্ট হয়ে যেতে পারে। প্যারাফিন এবং অ্যালকোহল বা অন্যান্য ধরণের রাসায়নিক রয়েছে এমন পণ্য ব্যবহার করবেন না। আপনার চুল যত দীর্ঘ হবে তত বেশি পুষ্টি দরকার। সুতরাং, তাদের সর্বোচ্চ পুষ্টি দিন এবং রাসায়নিক সমৃদ্ধ পণ্যগুলি থেকে তাদের দূরে রাখুন

স্ট্রেস কমিয়ে রাখুন:

অতিরিক্ত স্ট্রেস নেওয়া চুল পড়ে যাওয়ার একটি বড় কারণ। অতএব, অফিস, বাড়ি বা অন্যান্য সমস্যায় আপনার স্ট্রেস ছেড়ে দেওয়া জরুরী। চিকিত্সকদের মতে চুলের গ্রন্থিকোষের বৃদ্ধি স্ট্রেসের কারণে হ্রাস বা বন্ধ হয়ে যায়। এ জাতীয় চুল পড়া শুরু হয়। তবে মানসিক চাপ অপসারণ করলে চুল আবার বাড়তে পারে।

চুলের স্টাইলিং সরঞ্জাম ব্যবহার বন্ধ করুন:

আজকের সময়ে লোকেরা চুলের স্টাইলিং জিনিস বেশি ব্যবহার করে। যার কারণে চুল দেখতে ভাল লাগতে পারে তবে পরে তা চুল নষ্ট বা পড়া শুরু করে। আসলে, এই সরঞ্জামগুলির অতিরিক্ত ব্যবহার চুলকে শুকনো এবং শিকড় দ্বারা দুর্বল করতে পারে। যে সমস্ত লোকেরা প্রতিদিন এই সরঞ্জামগুলি ব্যবহার করেন, তাদের চুলও দুর্বল এবং পাতলা হতে পারে। তাই চুলের স্টাইলিংয়ের সরঞ্জামটি ব্যবহার বন্ধ করুন। যদি আপনি এটি ব্যবহার বন্ধ করতে না পারেন, তবে এটি ব্যবহারের আগে চুলে হেয়ার সিরাম বা হিট রক্ষক লাগান।

ধূমপান বন্ধ করুন:

ধূমপান করলে চুল পড়ার সমস্যা বাড়ে। এর বাইরে আপনার স্বাস্থ্যেরও ক্ষতি হতে পারে। সুতরাং আপনি ধূমপান পুরোপুরি ছেড়ে দেওয়া জরুরী। একটি গবেষণা অনুসারে ধূমপান চুলের follicles এর ডিএনএ ক্ষতি করে। এ ছাড়া চুলের বৃদ্ধিও বন্ধ হয়ে যায়। ধূমপান না করে চুল পড়া রোধ করা যায়।

স্বাস্থ্যকর ডায়েট করুন:

চুল পড়া রোধ করতে আপনার ডায়েটও পরিবর্তন করতে হবে। স্বাস্থ্যকর ডায়েট কেবল আপনার শরীরকেই উপকারী নয়, আপনার চুলও ভাল হতে পারে। চাইলে আপনি যোগব্যায়াম করতে পারেন। প্রতিদিনের ব্যায়ামের মাধ্যমে আপনার ডায়েটে মাছ, বেরি, মাংস, সবুজ শাকসবজি এবং বাদামগুলি অন্তর্ভুক্ত করে আপনি আপনার চুল উপকার করতে পারেন। এই সমস্ত জিনিস খাওয়া আপনার চুলকে খুব ভাল করে তোলে।

চুল পড়া বন্ধ করতে ভিটামিন-ই নিতে পারেন: 

ভিটামিন - ই এর অভাবেও চুল পড়ে যেতে পারে। চুল পড়া বন্ধ করার উপায় গুলোর মধ্যে একটি উপায় হলো ভিটামিন - ই খাওয়া। যে সব ফলমূল বা শাকসবজিতে ভিটামিন - ই আছে সেগুলো বেশি পরিমানে গ্রহন করবেন। তাড়াছা, কোন ফামের্সি থেকেও ভিটামিন ই ক্যাপসুল সংগ্রহ করতে পারেন। 

উপসংহারঃ আশা করি, ছেলেদের চুল পড়ার কারন এবং চুল পড়া বন্ধ করার উপায় - লেখাটি পড়ে চুল পড়ার কারন এবং ছেলেদের চুল পড়া বন্ধ করার উপায় গুলো খোজে পেয়েছেন। যদি আপনার কোন মতামত থাকে তবে আমদের জানাতে পারেন। 

শেয়ার করুন:

No Comment
Add Comment

দয়া করে কমেন্ট নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন - অন্যথায় আপনার মন্তব্য গ্রহণ করা হবে না।

comment url